শনিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২২, ১০:৪৫ পূর্বাহ্ন

দৃষ্টি দিন:
সম্মানিত পাঠক, আপনাদের স্বাগত জানাচ্ছি। প্রতিমুহূর্তের সংবাদ জানতে ভিজিট করুন -www.coxsbazarvoice.com, আর নতুন নতুন ভিডিও পেতে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল Cox's Bazar Voice. ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে শেয়ার করুন এবং কমেন্ট করুন। ধন্যবাদ।

আজ মজলুম জননেতার মৃত্যুবার্ষিকী

ভয়েস নিউজ ডেস্ক:

মজলুম জননেতা মওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানীর ৪৫তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ বৃহস্পতিবার (১৭ নভেম্বর)। ১৯৭৬ সালের এই দিনে ঢাকার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় (তৎকালীন পিজি) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মৃত্যুবরণ করেন। পরে টাঙ্গাইলের সন্তোষে তাকে চিরনিদ্রায় শায়িত করা হয়। দিনটি উপলক্ষে ঢাকা ও টাঙ্গাইলের সন্তোষে বিস্তারিত কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে।

দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃথক বাণী দিয়েছেন। এছাড়া, বিএনপিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দল তাকে স্মরণ করতে অনুষ্ঠান আয়োজন করেছে।

রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ তার বাণীতে বলেন ,মওলানা আব্দুল হামিদ খান ভাসানী সবসময় ব্যক্তিস্বার্থের ঊর্ধ্বে জাতীয় স্বার্থকে প্রাধান্য দিয়েছেন। তার (ভাসানীর) অত্যন্ত সাদাসিধা জীবনযাপন দেশ ও জনগণের প্রতি গভীর ভালোবাসারই প্রতিফলন। মওলানা ভাসানীর আদর্শ নতুন প্রজন্মকে দেশপ্রেম ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্বুদ্ধ করবে বলে প্রত্যাশা করেন রাষ্ট্রপতি।

প্রধানমন্ত্রী তার বাণীতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সঙ্গে তার (ভাসানীর) আদর্শিক ঐক্য ও রাজনৈতিক ঘনিষ্ঠতা ছিল উল্লেখ করে বলেন, শোষণ, বঞ্চনাহীন ও প্রগতিশীল, গণতান্ত্রিক এবং অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গঠনের জন্য মওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানী আজীবন সংগ্রাম করে গেছেন।

১৮৮০ সালের ১২ ডিসেম্বর সিরাজগঞ্জের ধানগড়া গ্রামে মওলানা ভাসানীর জন্ম। সিরাজগঞ্জে জন্ম হলেও মওলানা ভাসানী তার জীবনের সিংহভাগই কাটিয়েছেন টাঙ্গাইলের সন্তোষে। তিনি কৈশোর-যৌবন থেকেই রাজনীতিতে জড়িত ছিলেন। বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় তিনি প্রবাসী সরকারের উপদেষ্টা ছিলেন।

মওলানা ভাসানীর মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে বিএনপি আবদুল্লাহ আল নোমানকে আহ্বায়ক ও শামসুজ্জামান দুদুকে সদস্য সচিব করে কমিটি করেছে। তার কর্মের ওপর আলোচনা অনুষ্ঠান করেছে বুধবার (১৬ নভেম্বর)। আজ বৃহস্পতিবার দলটির উচ্চপর্যায়ের একটি প্রতিনিধি দল টাঙ্গাইলের সন্তোষে শ্রদ্ধা জানাবেন।

টাঙ্গাইলের সন্তোষে, দরবার হল, মাজার প্রাঙ্গণে ভাসানীর ৪৫তম মৃত্যুবার্ষিকীতে গণসংহতি আন্দোলনের পক্ষ হতে জনতার শ্রদ্ধাঞ্জলি প্রদান করা হবে। প্রধান সমন্বয়কারী জননেতা জোনায়েদ সাকির নেতৃত্বে শ্রদ্ধা নিবেদন কালে উপস্থিত থাকবেন গণসংহতি আন্দোলনের কেন্দ্রীয় নির্বাহী সমন্বয়কারী আবুল হাসান রুবেল, রাজনৈতিক পরিষদের সদস্য ফিরোজ আহমেদ প্রমুখ।

মওলানা ভাসানীর ৪৬ তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক এক বিবৃতিতে বলেন, বাংলাদেশের স্বপ্নপুরুষ মওলানা ভাসানীর প্রতি উপযুক্ত সম্মান প্রদর্শন না করে এবং তার জন্ম ও মৃত্যুবার্ষিকী রাষ্ট্রীয়ভাবে পালন না করে রাষ্ট্র ও সরকার তাদের হীনমন্যতার পরিচয় দিয়ে আসছে। এতে মওলানা ভাসানীর গৌরব কমেনি, বরং ছোট হয়েছে রাষ্ট্র ও সরকার।

মওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানীর ৪৬তম মৃত্যুবার্ষিকীতে শ্রদ্ধা জানিয়ে বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-বাংলাদেশ ন্যাপ চেয়ারম্যান জেবেল রহমান গানি ও মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া বলেছেন, মওলানা ভাসানী ছিলেন বাঙালি জাতির মুক্তির প্রেরণা। শোষণ-নির্যাতন, অন্যায়ের বিরুদ্ধে কিভাবে লড়তে তা তিনি শিখিয়েছেন। কি করে অধিকার ছিনিয়ে আনতে তা তিনি শিখিয়েছেন। আজ তার মতো একজন মহান নেতার অবদান সম্পর্কে বর্তমান প্রজন্মকে আমাদের শিখিয়ে যেতে হবে।

মজলুম জননেতা মওলানা ভাসানীর ৪৬তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-বাংলাদেশ ন্যাপ বৃহস্পতিবার সকালে টাঙ্গাইলের সন্তোষে মরহুমের মাজারে পুষ্পস্তবক অর্পণ ও ফাতেহা পাঠ করবে, একইসঙ্গে দলের ঢাকা মহানগরীর উদ্যোগে রাজধানীতে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে।

ভয়েস/আআ

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2020
Design & Developed BY jmitsolution.com