শনিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২২, ১১:০৫ পূর্বাহ্ন

দৃষ্টি দিন:
সম্মানিত পাঠক, আপনাদের স্বাগত জানাচ্ছি। প্রতিমুহূর্তের সংবাদ জানতে ভিজিট করুন -www.coxsbazarvoice.com, আর নতুন নতুন ভিডিও পেতে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল Cox's Bazar Voice. ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে শেয়ার করুন এবং কমেন্ট করুন। ধন্যবাদ।

নায়ক-নায়িকারা কে কোন দলের সাপোর্টার?

বিনোদন ডেস্ক:

চার বছর পর ফিরেছে ফুটবল বিশ্বকাপ। আজ থেকে বিশ্ব মেতে উঠবে ফুটবলে। বাংলাদেশের সমর্থকদের উন্মাদনা চোখে পড়ার মতো। পিছিয়ে নেই শোবিজের জনপ্রিয় তারকারাও। জেনে নেওয়া যাক কে সমর্থন করছেন কোন দল

মৌসুমী ও ওমর সানী, তারকা দম্পতি

ছোটবেলা থেকে খেলাধুলার প্রতি আমার অনেক আগ্রহ, বিশেষ করে ফুটবল আমার অনেক প্রিয় একটি খেলা। প্রতি চার বছর পর বিশ্বকাপ ফুটবলের আসর বসে। এ মহা আয়োজনের জন্য প্রতীক্ষায় থাকি। আমি ছোটবেলা থেকেই ব্রাজিলের সমর্থন করে আসছি। শুধু আমি নই, ওমর সানীও ব্রাজিলের অনেক বড় ভক্ত। কষ্ট হলেও ব্রাজিলের খেলা মিস করি না। আমরা পরিবারের সবাই মিলে খুব মজা করে খেলা দেখি। আমি চাই এবারও ব্রাজিল বিশ্বকাপ বিজয়ী হোক।

জাহিদ হাসান, অভিনেতা

আর্জেন্টিনার খেলা আমার ভালো লাগে। তাই এ বিশ্বকাপেও আমি আর্জেন্টিনার সমর্থন করছি। তবে পছন্দের ফুটবল খেলোয়াড় কিন্তু কয়েকজন। যেমন আর্জেন্টিনার মেসি, পর্তুগালের ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো, ব্রাজিলের নেইমার তাদের খেলাও দেখার চেষ্টা করি। যেহেতু আমি আর্জেন্টিনার সমর্থক, তাই প্রিয় টিমের প্রতি অনুভূতিটাও অন্যরকম। আমি চাই এবার আর্জেন্টিনার হাতেই শোভা পাক।

আসিফ আকবর, কণ্ঠশিল্পী

আমার পছন্দের দল ব্রাজিল। প্রিয় দলের খেলা বন্ধুবান্ধব মিলে খাওয়া-দাওয়া আর জম্পেশ আড্ডা দিয়ে দেখতে ভালোবাসি। ব্রাজিলের খেলা যেদিন হয় সেদিন যেখানেই থাকি না কেন, বন্ধুদের নিয়ে আয়োজন হবেই। ব্রাজিল প্রিয় দল হলেও প্রিয় খেলোয়াড় ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। তবে ব্রাজিল চ্যাম্পিয়ন হবে, এটা প্রত্যাশা করি।

জিয়াউল ফারুক অপূর্ব, অভিনেতা

ব্রাজিলের নান্দনিক খেলা দেখতে ভালো লাগে। আমি যখন খেলা দেখতে শুরু করি, তখনকার ব্রাজিল দলে ছিল তারার ছড়াছড়ি। তখন ব্রাজিল বিশ্বকাপও জিতেছিল। সাফল্যের ইতিহাস, খেলার ধরন সব কিছু মিলিয়েই ব্রাজিলের ফ্যান। প্রিয় দল ব্রাজিল হলেও মেসির খেলা ভালো লাগে। ওদের দলটাও এবার বেশ শক্তিশালী। একটা কথা বলে রাখি, আমরা ব্রাজিল সমর্থকরা একজনকে দেখেই সমর্থন করি না। পুরো দল, খেলা সব কিছু মিলেই ব্রাজিলকে সমর্থন করি।

চঞ্চল চৌধুরী, অভিনেতা

১৯৮৬ সালের মেক্সিকো বিশ্বকাপে আমি ম্যারাডোনার ভক্ত বনে যাই। ম্যারাডোনাকে ভালোবেসে তার জাদুকরী খেলায় মুগ্ধ হয়েই আমি আর্জেন্টিনা দলের সমর্থক। গ্রামে তো তখন বিদ্যুৎ ছিল না। আমাদের পুরো গ্রামে মাত্র দুটি সাদাকালো টেলিভিশন ছিল। চলত ব্যাটারির সাহায্যে। যেদিন অনেক রাতে খেলা থাকত, সেদিন অনেকটা পিকনিক পিকনিক ভাব থাকত। এখন তো এক সাপোর্টার আরেক সাপোর্টারকে গালি দেয়। এমন কেন! প্রতিপক্ষ থাকবেই। হিংসা কিংবা বিদ্বেষ ছড়ানোর দরকার নেই। যদিও এমন চিত্র আমাদের দেশে সব ক্ষেত্রেই। এটা ঠিক নয়। আমি চাই আর্জেন্টিনা ভালো খেলুক। মেসিকেও তার স্বরূপে মাঠে পেতে চাইব। মাঠে থেকে গ্যালারি মাতাতেন ম্যারাডোনা। তাকে এ বছর মিস করব। এ বছর আমার খেলা দেখার সঙ্গী হবে ছেলে। এখন ব্যস্ততার জন্য খেলাটা সেভাবে দেখা হয় না। আমার ছেলে খেলা দেখে। বাসায় ফেরার পর ওর কাছ থেকে সব শুনে নিই। তবে অবসর পেলে খেলা দেখি। আমি একটা দলকে সাপোর্ট করব, তার বাইরে আর ভালো খেলোয়াড় নেই কিংবা ভালো খেললেও সাপোর্ট করব না আমি তেমনটা ভাবি না। আমি আর্জেন্টিনার সাপোর্ট করি বলেই বলব, তারা এবার বিশ্বকাপ জিতবে, বিষয়টা কিন্তু তেমন নয়।

সরয়ার ফারুকী ও তিশা, তারকা দম্পতি

ফারুকী বরাবরই ব্রাজিল সমর্থন করেন। তিনি বলেন, ‘তাদের খেলা আমার ভালো লাগে। ব্রাজিলের খেলা যে সময়ই হোক কষ্ট করে হলেও দেখার চেষ্টা করি। এবারও তার ব্যত্যয় হবে না। আমি চাই প্রিয় দল ব্রাজিল এবার বিশ্বকে তাক লাগিয়ে বিশ্বকাপ বিজয়ী হোক।’ তবে তার স্ত্রী জনপ্রিয় অভিনেত্রী নুসরাত ইমরোজ তিশা আবার আর্জেন্টিনার সমর্থক।

ফেরদৌস, চিত্রনায়ক

আগে কোন দল করতাম বলব না। তবে ১৯৮৬ সালে ম্যারাডোনার ফুটবল জাদুতে মুগ্ধ হয়েছি। সেই ধারাবাহিকতায় আর্জেন্টিনার ভক্ত হয়ে গেছি। এখনো আছি। এখন যদিও ম্যারাডোনা বেঁচে নেই, তবে মেসি আছে। বিশ্বকাপে আর্জেন্টিনা মানেই বিশেষ কিছু। এবারও তাই হবে। মেসি চমকে দেবে বিশ্বকে। আমি চাই, এবারের বিশ্বকাপ আর্জেন্টিনার ঘরে যাক।

বিদ্যা সিনহা মিম, অভিনেত্রী

আমি বরাবরই ব্রাজিলের সমর্থক। আমার স্বামী সনিও ব্রাজিলের সমর্থক। ভাগ্যিস ও ব্রাজিলের সমর্থক, না হয় খেলা দেখার সময় দুজনের ঝগড়া লেগে যেত। যেমনটা হয় আমার বোনের সঙ্গে, ও আর্জেন্টিনার সমর্থক। বিশ্বকাপ চলাকালে আমার বোনের সঙ্গে চরম ঝগড়া, চিল্লাচিল্লি হয়। ব্রাজিলের খেলার দিন ও বিপক্ষ দলের। আবার আর্জেন্টিনার খেলার সময় আমি বিপক্ষ দলের থাকি। বোনটা এবার অস্ট্রেলিয়ায়। গতবার বিশ্বকাপে ব্রাজিল হারায় অনেক কেঁদেছিলাম। এবার হাসব নিশ্চিত। আমরা ফেভারিট, আমরাই জিতব। ২০০৬ সাল থেকে নিয়মিত ফুটবল বিশ্বকাপ দেখি। এ বছর এখন পর্যন্ত বিশ্বকাপের সময় টানা শ্যুটিং শিডিউল দেওয়া হয়নি। তাই এবার অনেক ম্যাচ দেখতে পারব।

মাহিয়া মাহি, চিত্রনায়কা

ছোটবেলা থেকেই আমি আর্জেন্টিনার সাপোর্টার। আমার পছন্দের খেলোয়াড় মেসি। প্রতিবারই আমি বিশ্বকাপের খেলাগুলো দেখার চেষ্টা করি। আর্জেন্টিনা ও মেসির শৈল্পিক খেলাগুলো মিস করতে চাই না। এবারও মিস করব না। প্রিয় টিম আর্জেন্টিনার জন্য শুভ কামনা।

পূজা চেরি, অভিনেত্রী

অপেক্ষাটা ছিল ২৮ বছরের। এই সময়ের মধ্যে আন্তর্জাতিক কোনো শিরোপা জিততে পারেনি আর্জেন্টিনা। গত বছর জুলাইয়ে সেই অপেক্ষা ঘুচিয়ে কোপা আমেরিকা জিতে নেয় আর্জেন্টিনা। জাতীয় দলের হয়ে শিরোপা খরা ঘোচান লিওনেল মেসি। আশা করছি এবার বিশ্বকাপেও অপেক্ষার প্রহর কাটবে। ৩৬ বছরের বিশ্বকাপ শিরোপা-খরা ঘোচানোর মিশন নিয়ে মাঠে নামবেন মেসি। আমার একটাই প্রিয় দল, আর্জেন্টিনা। ফাইনালের আগে আর্জেন্টিনা হেরে গেলে আমার খেলা দেখা শেষ! হয়তো ফাইনাল ম্যাচটা দেখতে পারি। আমার মায়ের কাছে শুনেছি ম্যারাডোনার কথা। মা ম্যারাডোনার ভক্ত। নিয়ম করে ফুটবল ম্যাচ দেখা হয় না আমার। ফুটবলের বড় আসরগুলো সাধারণত বাংলাদেশ সময়ে গভীর রাতে হয়ে থাকে। শ্যুটিং থাকলে খুব ভোরে উঠতে হয় বলে ম্যাচ দেখার নেশা ওভাবে করিনি। তবে বিশেষ কোনো টুর্নামেন্ট হলে সময় করে খোঁজখবর নেওয়া বা দেখার চেষ্টা করি। সর্বশেষ কোপা আমেরিকার ফাইনাল ম্যাচ আয়োজন করে রাত জেগে দেখেছিলাম। আশা করছি আর্জেন্টিনা কোপা আমেরিকা টুর্নামেন্টে যে দলবদ্ধভাবে দারুণ খেলেছে তা অব্যাহত থাকবে।

আর্জেন্টিনার সমর্থক তালিকায়

আরও আছেন

অভিনয়শিল্পী : মামুনুর রশীদ, ইলিয়াস কাঞ্চন, জাহিদ হাসান, ফেরদৌস, নিপুণ, দীপা খন্দকার, সুমাইয়া শিমু, তানভিন সুইটি, নাদিয়া আহমেদ, নুসরাত ইমরোজ তিশা, আদনান ফারুক হিল্লোল, জাকিয়া বারী মম, নিরব হোসেন, মামনুন ইমন, জায়েদ খান, পপি, পরীমণি, মাহিয়া মাহি, কল্যাণ কোরাইয়া, মিম মানতাশা, সালহা নাদিয়া ও জান্নাতুল ফেরদৌস ঐশী।

কণ্ঠশিল্পী : সামিনা চৌধুরী, হাবিব ওয়াহিদ, শারমিন সুলতানা সুমী, দিলশাদ নাহার কনা, আরফিন রুমি, ইমরান মাহমুদুল, জাকিয়া সুলতানা কর্ণিয়া ও ঝিলিক।

ব্রাজিলের সমর্থক তালিকায়

আরও আছেন

অভিনয়শিল্পী, নির্মাতা : ওমর সানী, মৌসুমী, মিশা সওদাগর, মোস্তফা সরয়ার ফারুকী, মাহফুজ আহমেদ, জয়া আহসান, মোশাররফ করিম, রিয়াজ, আফসানা মিমি, আদিল হোসেন নোবেল, তারিন জাহান, বিজরী বরকতউল্লাহ, অমিতাভ রেজা, দেবাশীষ বিশ্বাস, আনিসুর রহমান মিলন, আফরান নিশো, শতাব্দী ওয়াদুদ, মোনালিসা, রওনক হাসান, সাইমন সাদিক, বাপ্পী চৌধুরী, মিশু সাব্বির ও বিপাশা কবির।

কণ্ঠশিল্পী : কুমার বিশ্বজিৎ, আসিফ আকবর, বাপ্পা মজুমদার, আঁখি আলমগীর, রাশেদউদ্দিন আহমেদ তপু, সোমনুর মনির কোনাল, লুৎফর হাসান ও সাবরিনা পড়শী।

ব্রাজিল-আর্জেন্টিনার বাইরে যারা

জার্মানি সমর্থক : অভিনেতা এফ এস নাঈম, সাবিলা নূর, সাফা কবির, অর্চিতা স্পর্শিয়া ও তৌসিফ মাহবুব।

স্পেন সমর্থক : সিয়াম আহমেদ ও অমৃতা খান।

ইতালি সমর্থক : শবনম ফারিয়া ও জাহারা মিতু (যদিও ইতালি এবার বিশ্বকাপে নেই)।

ভয়েস/আআ

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2020
Design & Developed BY jmitsolution.com