রবিবার, ২৯ মে ২০২২, ০৪:০৭ পূর্বাহ্ন

দৃষ্টি দিন:
সম্মানিত পাঠক, আপনাদের স্বাগত জানাচ্ছি। প্রতিমুহূর্তের সংবাদ জানতে ভিজিট করুন -www.coxsbazarvoice.com, আর নতুন নতুন ভিডিও পেতে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল Cox's Bazar Voice. ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে শেয়ার করুন এবং কমেন্ট করুন। ধন্যবাদ।

পর্যটন স্পট থেকে সাড়ে চার শতাধিক রোহিঙ্গা আটক 

ভয়েস প্রতিবেদক:

কক্সবাজার শহরের বিভিন্ন পর্যটন স্পটে অভিযান চালিয়ে সাড়ে চার শতাধিক রোহিঙ্গা নারী পুরুষ ও শিশুকে আটক করেছে পুলিশ। এসব রোহিঙ্গারা উখিয়া ও টেকনাফ উপজেলায় অবস্থিত বিভিন্ন রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে বের হয়ে সমুদ্র সৈকতে ঈদের ছুটি উপলক্ষে বেড়াতে এসেছিল।
ঈদের ছুটিতে কক্সবাজারে এখন পর্যটকের উপচে পড়া ভীড়। বুধবার সকাল থেকে সৈকতের লাবনী, সুগন্ধা, কলাতলী সহ বিভিন্ন পয়েন্টে লাখের অধিক পর্যটকের আগমন ঘটেছে। জানা গেছে, সকাল থেকে সৈকতের বিভিন্ন স্পটে দলবদ্ধ হয়ে রোহিঙ্গাদের দেখা যায়। তারা বিনোদন কেন্দ্র গুলোতে দলবদ্ধ হয়ে ভীড় জমাতে থাকে। এ খবর বিভিন্ন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে পৌছলে সরব হয় তারা।
কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম জানিয়েছেন সৈকতের বিভিন্ন স্পটে রোহিঙ্গাদের দলবদ্ধ হয়ে ঘোরাঘুরি করার খবর পেয়ে দুপুর থেকে পুলিশ একাধিক টিমে বিভক্ত হয়ে অভিযান চালায়। সৈকতের লাবনী, সুগন্ধা, কলাতলী সহ বিভিন্ন পয়েন্ট থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত সাড়ে চার শতাধিক রোহিঙ্গা আটক করে সদর থানায় নিয়ে আসা হয়। তাদের মধ্যে নারী ও শিশু এবং প্রাপ্ত বয়স্ক রোহিঙ্গা রয়েছে। তিনি জানান, এরা বিভিন্ন রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে বের হয়ে কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে বেড়াতে এসেছে বলে জিজ্ঞাসাবাদে তারা জানিয়েছেন।
তিনি জানান এমনিতেই কক্সবাজারে বিপুল সংখ্যক পর্যটক এসেছে। তাদের নিরাপত্তার একটা বিষয় রয়েছে। ক্যাম্প থেকে বিপুল সংখ্যক রোহিঙ্গা সৈকতে এসে ঘোরাফেরা করলে সৈকতে আসা পর্যটকদের মনে ভীতির সৃষ্টি হতে পারে। ক্যাম্প থেকে এভাবে রোহিঙ্গারা বের হতে পারে না।
তিনি জানান, সৈকতে আটক রোহিঙ্গাদের ব্যপারে শরনার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাশন অফিসের উর্ধতন কর্মকর্তাদের জানানো হয়েছে। আটক রোহিঙারা কোন কোন ক্যাম্প থেকে বের হয়েছে তা যাচাই বাছাই করা হচ্ছে। তাদেরকে উখিয়ার রোহিঙ্গা ট্রানজিট ক্যাম্পে পাঠিয়ে দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।
অপরদিকে আটক রোহিঙ্গারা জানিয়েছে ঈদের ছুটি উপলক্ষে তারা সমুদ্র সৈকতে বেড়াতে এসেছিল।
ভয়েস/আআ

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2020
Design & Developed BY jmitsolution.com