রবিবার, ২৯ মে ২০২২, ০৬:১২ পূর্বাহ্ন

দৃষ্টি দিন:
সম্মানিত পাঠক, আপনাদের স্বাগত জানাচ্ছি। প্রতিমুহূর্তের সংবাদ জানতে ভিজিট করুন -www.coxsbazarvoice.com, আর নতুন নতুন ভিডিও পেতে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল Cox's Bazar Voice. ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে শেয়ার করুন এবং কমেন্ট করুন। ধন্যবাদ।

বাংলা ভাষার জন্য আসছে একঝাঁক প্রযুক্তি

ভয়েস নিউজ ডেস্ক:
প্রযুক্তিতে বাংলার ব্যবহার অনেক আগে শুরু হলেও তা ছিল বিচ্ছিন্ন আকারে। ব্যক্তি উদ্যোগে কিছু কাজ হলেও সরকারি উদ্যোগে বড় কিছু হয়নি বললেই চলে। দীর্ঘদিন ধরেই একটি জাতীয় কি-বোর্ড, বাংলা বানান পরীক্ষার সফটওয়্যার, বাংলা ওসিআর, বাংলা মেশিন ট্রান্সলেটরের অনুপস্থিতি ছিল চোখে পড়ার মতো। সরকার এই সমস্যা দূর করতে উদ্যোগ নিয়েছিল কয়েক বছর আগেই। এবার তা আলোর মুখ দেখতে যাচ্ছে বলে জানা গেছে। সরকারিভাবে তৈরি হচ্ছে জাতীয় কি-বোর্ড, বাংলা বানানের সফটওয়্যার, ওসিআর ও মেশিন ট্রান্সলেটর।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের (আইসিটি) গবেষণা ও উন্নয়নের মাধ্যমে বাংলা ভাষা সমৃদ্ধকরণ প্রকল্পে তৈরি হচ্ছে বাংলা ভাষা সফটওয়্যার প্যাকেজ। এরমধ্যেই থাকছে ওসিআর, স্পিচ টু টেক্সট অ্যান্ড টেক্সট টু স্পিচ সফটওয়্যার, জাতীয় কি-বোর্ড, বাংলা স্টাইল গাইড, বাংলা ফন্ট ইন্টারঅপারেবিলিটি ইঞ্জিন, বাংলা স্পেল অ্যান্ড গ্রামার চেকার, বাংলা মেশিন ট্রান্সলেটর ইত্যাদি।

জানা যায়, এসব সফটওয়্যার উন্মুক্ত থাকবে। সরকারি বা বেসরকারি কাজে বাংলা বানানের যে দুরবস্থা সেটাও দূর হবে এতে। উন্মুক্ত এই মাধ্যম ব্যবহার করে সবাই একই বানান রীতি অনুসরণ করতে পারবেন। উপযুক্ত শব্দ যাচাই করে নেওয়ার ফলে আরও অনেক ভুলও দূর করা সম্ভব হবে।

এ বিষয়ে আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেছেন, আইসিটিতে বাংলাকে সমৃদ্ধ করতে আইসিটি বিভাগের গবেষণা ও উন্নয়নের বাংলা ভাষা সমৃদ্ধকরণ প্রকল্পের মাধ্যমে অপটিক্যাল ক্যারেকটার রিকগনাইজার (ওসিআর), টেক্সট টু স্পিচসহ ১৫টি টুল তৈরি করা হচ্ছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, আইসিটি বিভাগের অধীন বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল (বিসিসি) এই উদ্যোগ বাস্তবায়ন করছে। এই প্রকল্পের বরাদ্দ ১৫৯ কোটি টাকা। প্রকল্পের জন্য প্রশাসনিক আদেশ হয়েছে ২০১৭ সালে। প্রকল্প পরিচালক ওই বছরেরই এপ্রিলে নিয়োগ দেওয়া হলেও কাজ শুরু হয় ২০১৮ সালের আগস্টে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র আরও জানায়, বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়কে (বুয়েট) এই প্রকল্পের কারিগরি পরামর্শক নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। সফটওয়্যার যাচাই-বাছাই ও পরামর্শ দেওয়ার দায়িত্বে থাকবে এই কমিটি। তারাই প্রকল্পর টিওআর (টার্মস অব রেফারেন্স) লেখার কাজ করেছেন। এছাড়া এই কাজের জন্য একটি ইসি কমিটিও রয়েছে। দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, ভাষাবিদসহ বিভিন্ন পর্যায়ের গুণীজনরা এতে জড়িত রয়েছেন। সফটওয়্যার নির্মাণ শেষ হলে ইসি তা পর্যালোচনা করে দেখবে।

জানা যায়, এই প্রকল্পের তিনটি টুল তৈরির কাজ পেয়েছে তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান রিভ সিস্টেমস। প্রতিষ্ঠানটি স্ক্রিন রিডার, বাংলা স্পেল অ্যান্ড গ্রামার চেকার ও ওসিআর তৈরি করছে।

প্রতিষ্ঠানটির প্রধান বাণিজ্যিক কর্মকর্তা রায়হান হোসেন বাংলা ট্রিবিউনকে জানান, তিনটির মধ্যে দুটির কাজ প্রায় শেষ। আরেকটা চলতি বছরের শেষ নাগাদ শেষ হবে। বাংলা স্পেল অ্যান্ড গ্রামার চেকার তৈরির কাজ প্রায় শেষ। শুধু ওয়েব এক্সটেনশনের কাজ বাকি। জুনের মধ্যে শেষ হয়ে যাবে বলে তিনি আশাবাদী।

স্ক্রিন রিডারের বিষয়ে তিনি বলেন, করোনার কারণে কাজটি অনেক পরে শুরু হয়েছে। এখন এগিয়ে চলেছে। ডিসেম্বরের মধ্যে কাজ সম্পন্ন হবে বলে তিনি জানান। ওসিআর-এর বিষয়ে রায়হান হোসেন বলেন, এটার কাজ জুনের মধ্যে শেষ হবে।

অপর এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এগুলো সংবেদনশীল কাজ। অনেক ডাটা সংগ্রহ করতে হচ্ছে। সেগুলোর নির্ভুলতা যাচাই করা, যন্ত্রের উপযুক্ত করা, বোধগম্য করা- অনেক কিছু জড়িত। বারবার পরীক্ষা করতে হচ্ছে।সুত্র: বাংলা ট্রিবিউন।

ভয়েস/আআ

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2020
Design & Developed BY jmitsolution.com